ভ্যানে বাড়ি নেয়া হচ্ছিল নবজাতককে, খবর পেয়ে গাড়িতে পৌঁছে দিলেন ডিসি

editoreditor
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  02:41 PM, 05 July 2021

 

কঠোর লকডাউনের সাথে দিন ভারী বৃষ্টি। দূরপাল্লার বাস-গাড়ী সহ যানবাহন বন্ধ। কোনো উপায় না পেয়ে নবজাতককে ভ্যানে করে ফরিদপুরের জেনারেল হাসপাতাল থেকে বৃষ্টিতে ভিজে প্রায় ৬০ কিলোমিটার দূরে মাগুরা নিয়ে যাচ্ছিলেন নবজাতক শুভ’র নানা সৈয়দ ফায়েক আলী।

কোন মাধ্যমে খবর পান ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার। তার সার্বিক তত্ত্বাবধানে ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কুইক রেসপন্স টিমের সহযোগিতায় শিশুটিসহ তার পরিবারকে মাগুরা জেলার মোহাম্মদপুর থানার বালিদিয়ায় নিজ বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

রোববার (৪ জুলাই) সকালে ফরিদপুর সদর হাসপাতালে শিশুটি জন্মগ্রহণ করে। দুপুরের পর হাসপাতাল থেকে শিশুটিকে নিয়ে বাড়ির দিকে রওনা হন তারা। কঠোর লকডাউনে সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় উপায়ন্তর না পেয়ে সদ্য জন্ম নেয়া শিশুটির নানা ভ্যান চালিয়ে প্রায় ৬০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে গ্রামের বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা করেন।

বিষয়টি জানতে পারেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার। তিনি অক্সিজেনসহ গাড়িতে করে নবজাতকসহ পরিবারটিকে নিরাপদে বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করেন। এসময় পরিবারের অনুমতিতে গাড়ির ভেতরেই নবজাতক শিশুটির নাম রাখা হয়-মোহাইমিনুল ইসলাম শুভ।

শুভ’র নানা সৈয়দ ফায়েক আলী বলেন, পরিবারের নতুন সদস্য নাতি বাড়ি নিতে হবে। কিন্তু গাড়ি-ঘোড়া সবইতো বন্ধ। কি আর করার। তাই নিজে ভ্যান চালিয়ে রওনা করেছিলাম। কিভাবে যেন ডিসি স্যার জানতে পেরে গাড়িতে করে সবাইকে বাড়িতে পৌঁছে দেন। সাথে আবার পুলিশও দেন। মনে হচ্ছে আমার নাতিটি ভাগ্যবান। শুভ লক্ষণ নিয়ে পৃথিবীতে এসেছে, এজন্য তার নাম রাখা হয়েছে শুভ। তিনি এবং পরিবারের সবাই ডিসি সাহেবের এমন মানবিক কাজের জন্য কৃতজ্ঞতা জানান।

জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, খবর পেয়ে তাদের বাড়ি পৌঁছে দেয়া হয়েছে। পথে যাতে তাদের কোনো সমস্যা যেন না হয় এজন্য পুলিশের সহায়তা নেয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :